এলোমেলো ভাবনা

প্রত্যেক মানুষই আলাদা , প্রত্যেকটা মানুষের নিজস্ব কিছু ভাবনা,ভাললাগা আছে।  এর মধ্যে হয়তো কারো সাথে কিছু বা অনেকটা মিলে যেতে পারে। ২টা মানুষ একসঙ্গে থাকতে হলে তাদের প্রত্যেকটা জিনিস মিল থাকতে হবে এমন কোন কথা নেই,তাদের সব পছন্দ-অপছন্দ,ভাল লাগা খারাপ লাগে মিলতে হবে এমন নয়। কারো সাথে হয়তো গল্প করতে খুব ভাল লাগে, কারো সাথে খেলতে , কারো সাথে ঘুরতে , কারো সাথে কাজ করতে । একটা মানুষের সবকিছুই ভাল লাগবে এমনটি আশা করাও বোকামি। তবে হ্যাঁ, ঐ মানুষটার খারাপটা আমি মেনে নিতে পারবো কিনা সেটাই হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। জীবনে ৩টা জিনিস খুব খুব গুরুত্বপূর্ণ।  একসেপ্টেন্স, আন্ডারস্ট্যান্ডিং , সেক্রিফাইস

একসেপ্টেন্স-  ২টা মানুষ একসাথে ভাল থাকার প্রথম ফ্যাক্টর হল একসেপ্টেন্স। কোন মানুষই পারফেক্ট হবেনা এইটা মেনে নেওয়া। যা আছে  তার মধ্যেই নিজের সুখ খুঁজে নেওয়া। হয়তো কেউ একটু কম সুন্দর হবে ,কেউ একটু কম লম্বা হবে,কারো টাকাপয়সা কম থাকবে। এইরকম অনেক কিছু আছে যেগুলা ঐ মানুষটার কম থাকতে পারে আবার বেশী থাকতে পারে, পজেটিভ বা নেগেটিভ । হ্যাঁ, ঐ মানুষটাকে গ্রহণ করার আগেই এইসব বিবেচনা করতে হবে। সব কিছু আগে যাচাই বাছাই করা যাবে যে তাও না , আফটারঅল মানুষতো কোন পণ্য নয়। আমাদের একটা বড় সমস্যা হল আমারা আমাদের চাওয়া-পাওয়া অন্যদের সাথে কম্পেয়ার করি। এইটা আমাদের সুখকে ধীরে ধীরে নষ্ট করে দেয়। আরেকজনের এই জিনিসটা আমার থেকে ভাল এই একটা চিন্তাই যথেষ্ট নিজের সুখকে ব্যাকটেরিয়া আক্রান্ত করার জন্য।
“If we compare our happiness with others,happiness will walk away slowly”

আন্ডারস্ট্যান্ডিং–  যেমন একজন মুভি দেখতে খুব পছন্দ করে আরেকজন কবিতা পড়তে। ২জনের পছন্দ ২দিকে।একজন কমেডি খুব পছন্দ করে আরেকজনের কমেডি ভাল লাগেনা।একজন কম কথা বলে আরেকজন বেশী। এইগুলা সমস্যা হবেনা তখনই যদি  জিনিসগুলাকে মেনে নিতে শিখে , একজন আরেকজনকে বুঝতে শিখে।

সেক্রিফাইস- খুব গুরুত্বপূর্ণ যেটা থাকা বা না থাকার কারনে সম্পর্ক সুন্দরও অথবা নষ্ট  হয়ে যায়। সম্পর্কের মধ্যে ইগো-এর অস্তিত্ব কোন ভাবেই রাখা যাবেনা ,না হলে কোন না কোন সময় সম্পর্কটা ঝাপসা হয়ে যাবে। সম্পর্কের একটা বড় প্রশ্ন “আমিই কেন সেক্রিফাইস করবো?!!”। সম্পর্কের মধ্যে এই প্রশ্নটাই ভয়ানক। কোন কোন সময় হেরে যাওয়া মানেই জিতে যাওয়া, না হয় একসময় মানুষটা জিতে যাবে হেরে যাবে সম্পর্কটা।

এই ৩টা ফ্যাক্টরকে কোনভাবেই ছাড় দেওয়া যাবেনা। ৩টার বেলেন্স রাখতে হবে।কোন একটা কম হলে আরেকটা খুব বেশী হতে হবে।

সম্পর্কের মধ্যে প্লেফুল সম্পর্কগুলাই ভাল। খুনসুটি,দুষ্টামি,মারামারি(অবশ্যই সিরিয়াস না :P) ,এতে করে সম্পর্ক বোরিং হয়না। সম্পর্ক বোরিং হয়ে গেলে খুব সমস্যা। বেশী ভালবাসাও ভাল না আবার ভালবাসা কম হলেও হবেনা।
একসাথে থাকতে গেলে ভুল বোঝাবুঝি,রাগারাগি,মান-অভিমান এইগুলা কম বেশী হবেই। কিন্তু একটা জিনিস কখনও ভাঙ্গা যাবেনা সেটা হল বিশ্বাস। এইটা এমন এক জিনিস যা একবার ভেঙ্গে গেলে পড়ে জোড়া লাগতে পারে কিন্তু সেটা অনেকটা ভাঙ্গা পা-এর মতো কাজ করবে। চলবে ঠিকই কিন্তু স্বাভাবিকের মতো নয়।

আরেকটা জিনিস হল, একটা মানুষকে চিনতে হলে অনেকটা সময়ের প্রয়োজন। একসাথে না থাকা হলে চেনা অনেক কঠিন। কোনমানুষকে সম্পূর্ণভাবে সারাজীবনেও চেনা সম্ভব নয়।

কোন কিছু গ্রহণ করিবার আগে অনেকবার চিন্তা করিয়া লওয়া উচিত কিন্তু গ্রহণ করিবার পর চিন্তা করা কোনভাবেই উপযুক্ত নয়। এইটা মানুষের স্বাভাবিক ধর্ম যে , কোন কিছু অর্জন করিবার পর সেটার আকর্ষণ পূর্বের ন্যায় বিরজমান থাকেনা কিন্তু সেই আকর্ষণ যদি স্থানচূত হয় বা প্রতিস্থাপিত হয় তাহা হয়লেই জীবনের ছন্দ পতন ঘটিবে, সম্পর্ক রসহীন হইয়া পরিবে। অর্জন করার চেয়ে রক্ষা করা সুকঠিন।

 

এই কথাগুলা একান্তই আমার মতামত এবং এইগুলা আমি আমাকেই বলতেছি।
তাবলীগের একটা জিনিস আমার খুব ভাল লাগে। তাবলীগে গেলে অন্যকে ভাল পথে,নামজের দাওাতের জন্য পাঠায়। দেখা যায় এমন অনেকেই যায়  যারা আগে নিজেই খুব একটা নামাজ কালাম পড়তনা। অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগত, ও নিজেই ঠিকনাই অন্যকে ঠিক হওয়ার জন্য কিভাবে পরামর্ষ দেয়। এইটা আমার মনেও প্রশ্ন ছিল । একদিন এর উত্তর আমি পেয়েছিলাম। উত্তরটা আমার খুব মনে ধরেছিল। কেউ যখন আরেকজনকে কোন কিছু করার জন্য  বলে তখন তার মনে এইটা গেথে যায়, তার মনে বার বার এইটা খেলতে থাকে। যেমন কেউ যদি কোন কিছু পড়ার পর  সেটা আরেকজনকে বোঝায় তখন সেই পড়া যে বোঝাল তার মনের মধ্যে খুব ভাল করে রয়ে যায় এবং কোন কিছু অপরিষ্কার থাকলে সেটা ক্লিয়ার হয়ে যায়।
আর এইসব কারনেই আমি উপরের কথাগুলা আমার নিজেকেই বলতেছি ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s